ভূমিকম্পের জেরে মৃত্যু ছাড়িয়েছে ৪০০০মলদ্বীপে সন্তানদের সঙ্গে ছুটির মেজাজে শাহরুখবগুড়ায় ধর্ষণ চেষ্টাকালে আ’লীগ নেতার পুরুষাঙ্গ কেটে দেয়া হয়রাজধানীর সব ফ্লাইওভারে থাকা দেয়াল লিখন ও পোস্টার দুই সপ্তাহের মধ্যে অপসারণের নির্দেশ দিয়েছেন হাই কোর্ট৫৮ বছর বয়সী এক নারীকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ
No icon

আজ থেকে মিরপুরের সব বাসে ই-টিকিট

রাজধানীর মিরপুর অঞ্চলের সব বাসে আজ রবিবার (১৩ নভেম্বর) থেকে ই-টিকিটের মাধ্যমে ভাড়া আদায় করা হবে। মিরপুরে ৩০টি কোম্পানির বাস চলাচল করে। গতকাল শনিবার রাজধানীর ইস্কাটন এলাকায় ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি আয়োজিত রাজধানী ঢাকার গণপরিবহনে ই-টিকিটিং পদ্ধতি চালু বিষয়ক এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্যাহ।তিনি বলেন, ২০২৩ সালের ৩১ জানুয়ারি থেকে ঢাকা শহরে চলাচলকারী ৬০ কোম্পানির বাস এবং ২৮ ফেব্রয়ারি থেকে ঢাকা ও ঢাকা শহরতলীর ৯৭ কোম্পানির বাস ই-টিকিটিংয়ের আওতায় চলাচল করবে।

ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব বলেন, গত ২২ সেপ্টেম্বর থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় বন্ধে ই-টিকিটিং পদ্ধতি চালু করা হয়। ঐ সময় মিরপুরের আটটি বাস কোম্পানিতে প্রথমে পরীক্ষামূলকভাবে এটি চালু করা হয়েছিল। এই পদ্ধতিতে যাওয়ার পর দেখা গেল মালিকরা ইনকাম সঠিকভাবে পাচ্ছি না। একদম কমে গেছে। তাদের অনেকে বাস চালাতে আগ্রহী হলো না। পরে তাদের সঙ্গে কথা বলে ই-টিকিটিং মেশিন বাসের ভেতরে দেওয়া হলো। পরীক্ষামূলকভাবে সেই কাজটি করায় দেখা গেছে আগের  চেয়ে ফলাফল অনেক ভালো এসেছে। এতে করে মালিকদের ইনকাম বেড়েছে। আগে গাড়িতে দুই জন কর্মী থাকলেও এখন সেখানে তিন জন কর্মীর প্রয়োজন হচ্ছে। এদের মধ্যে একজন চালক, হেলপার এবং কনডাক্টর।

আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে ঢাকা শহরতলিতে (গাজীপুর, সাভার, নবীনগর, ধামরাই, মুন্সীগঞ্জ) চলাচলকারী ৩৭টি বাসকেও ই-টিকিটিংয়ের আওতায় আনা হবে। সুতরাং ২৮ ফেব্রয়ারির মধ্যেই ঢাকা শহর এবং শহরতলিতে চলাচলকারী সব বাস ই-টিকিটিংয়ের আওতায় আসবে। ঢাকা শহর এবং শহরতলিতে চলাচলকারী মোট বাসের সংখ্যা হচ্ছে ৫ হাজার ৬৫০টি। এর মধ্যে ঢাকা সিটিতে চলে ৩ হাজার ১১৪টি এবং শহরতলিতে চলে ২ হাজার ৩৩৬টি।ই-টিকিটিং চালু হলে ঢাকা শহরের মধ্যে চলাচলকারী বাসগুলোর মধ্যে যে অসম প্রতিযোগিতা থাকত সেগুলো বন্ধ হবে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব বলেন, ই-টিকিটিং চালু হলে অসম প্রতিযোগিতা বন্ধ হবে। কারণ চালকদের বেতন নির্ধারণ করা দেওয়া থাকবে। ই-টিকিটিংয়ের জন্য বর্তমান থেকে আরো অনেক টাকা বেশি বেতন নির্ধারণ করে তাদের দেওয়া হচ্ছে।সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির কোষাধ্যক্ষ আজমল উদ্দিন আহমেদ সবুর ও দপ্তর সম্পাদক সামদানী খন্দকারসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।