গাজীপুরে টেক্সটাইল মিলের গুদামে আগুন,আরও একটি উপশহর করতে যাচ্ছে রাজউকসোনালী ব্যাংকের খেলাপি ঋণ যথেষ্ট উদ্বেগজনকব্রাজিলের ঐতিহাসিক জয়ে টিএসসিতে সমর্থকদের উল্লাসকুমিল্লার ৫ ইউপিতে ভোটগ্রহণ চলছে
No icon

চীন নিয়ে ন্যাটোর সতর্কতা

চীনের ওপর নির্ভরশীলতা সৃষ্টি না করার জন্য পশ্চিমা দেশগুলোকে অবশ্যই সতর্ক থাকতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন ন্যাটো মহাসচিব জেন্স স্টোলটেনবার্গ। গত সোমবার তিনি এই মন্তব্য করেন। এমন সময় তিনি এই মন্তব্য করলেন যখন ইউক্রেনে রাশিয়ার যুদ্ধের কারণে পশ্চিমারা রুশ জ্বালানিনির্ভরতা কমাতে চাইছে।স্পেন সফরে থাকা ন্যাটো মহাসচিব বলেন, আমরা দেখছি আমাদের গুরুত্বপূর্ণ অবকাঠামো, সাপ্লাই চেইন ও গুরুত্বপূর্ণ শিল্প খাত নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা জোরদার করছে চীন।জোট মিত্রদের তাদের সমাজ ও অবকাঠামো নিয়ে সতর্কতা বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন স্টোলটেনবার্গ। তিনি বলেন, চীনের বিরল খনিজ সব জায়গায় রয়েছে। এগুলো রয়েছে আমাদের ফোন, গাড়ি ও সামরিক সরঞ্জামে। স্বৈরাচারী শাসকদের আমরা এমন কোনো সুযোগ দিতে চাই না, যাতে করে তারা আমাদের দুর্বলতার সুযোগ নেয় এবং গোপনে ক্ষতিসাধন করতে পারে।

জুন মাসে গৃহীত ন্যাটোর একটি কৌশলপত্রে চীনকে জোটটির স্বার্থ, নিরাপত্তা ও মূল্যবোধের জন্য একটি হুমকি হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। চীনকে একটি অর্থনৈতিক ও সামরিক শক্তি, যে নিজের কৌশল, উদ্দেশ্য এবং সামরিক গঠন সম্পর্কে অস্বচ্ছতা বজায় রাখছে।এই কৌশলপত্র ন্যাটোর অবস্থানের প্রতিফলন। ২০১০ সালে গৃহীত জোটের কৌশলপত্রে চীনের কথা উল্লেখ করা হয়নি। তখন চীনকে পশ্চিমারা একটি বাণিজ্যিক অংশীদার ও উৎপাদন ঘাঁটি হিসেবে বিবেচনা করত।