তিন ঝুঁকিতে বিশ্ব অর্থনীতিযুক্তরাষ্ট্রের সামরিক সহায়তা পাচ্ছে মিশরসবার আগে সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডকরোনার নতুন তাণ্ডবে ফের কাঁপছে গোটা বিশ্বক্রেডিট কার্ডে নতুন কর্মক্ষেত্র
No icon

মুশফিকের ক্যাচ মিস, রান আউটে কাটা ইয়াং

নতুন বছরের প্রথম দিন সকালেই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট লড়াইয়ে নেমেছে বাংলাদেশ। দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বাংলাদেশি অধিনায়ক মুমিনুল হক। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কিউইদের সংগ্রহ ২ উইকেটে ১৪৭ রান।ফিল্ডিংয়ে নেমে শুরুতেই অধিনায়কের সিদ্ধান্তের প্রতিদান দিলেন তরুণ পেসার শরীফুল ইসলাম। তার বলে ইনিংসের চতুর্থ ওভারেই উইকেট হারিয়েছে নিউজিল্যান্ড। লিটন দাসের দুর্দান্ত ক্যাচ হয়ে ফিরে গেছেন অধিনায়ক টম ল্যাথাম।শরীফুলের দ্রুত শিকারে ভালো কিছুর ইঙ্গিত দিয়েছিল সফরকারীরা। কিন্তু সময়ের সাথে সাথে যেন ছন্নছাড়া হয়ে যাচ্ছিল বাংলাদেশ। এই সুযোগে বাংলাদেশকে ভুগিয়ে নিজেদের রানের গতি বাড়িয়ে নিয়েছেন কিউই দুই টপ অর্ডার ব্যাটার উইল ইয়াং ও ডেভন কনওয়ে। যদিও অর্ধশতক ছোঁয়ার পরেই প্যাভিলিয়নে ফিরতে পারতেন ইয়াং। ৪৭তম ওভারের শেষ বলে ইয়ংয়ের হাওয়ায় ভাসানো বল হাতের মুঠোয় ধরতে পারেননি মুশফিক। এরপরে আর ইয়াংকে ইনিংস বড় করতে দেয়নি টাইগাররা।শান্তর থ্রো ও লিটনের স্টাম্পিংয়ে ফিফটির পর ৫২ রানে আউট হন ইয়াং। মিরাজের বলে মিড উইকেটে বল ঠেলে দিয়ে রান নেওয়ার জন্য দৌড় দেন ইয়াং। কিন্তু কনওয়ে তার ডাকে সাড়া দেননি। তাই বাধ্য হয়ে ফিরতে হয়। শান্তর থ্রোতে স্ট্যাম্প ভাঙেন লিটন। ইয়াংয়ের বিদায়ে ভাঙে ১৩৮ রানের জুটি। উইকেটে নতুন ব্যাটসম্যান রস টেলর।

বছরের পহেলা দিন টেস্ট ম্যাচ খেলতে নামার ঘটনা বাংলাদেশের ক্রিকেটে আগে কখনোই ঘটেনি। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দ্বিতীয় আসরে টাইগারদের দ্বিতীয় সিরিজ সে সুযোগ করে দিয়েছে। সেটিও শুরু হয়েছে নিউজিল্যান্ডের মতো ভূস্বর্গে। পুরোনো বছরের ব্যর্থতার গ্লানি মুছে ফেলে নতুন স্বপ্ন নিয়ে মাউন্ট মঙ্গানুইয়ের বে ওভালে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে খেলতে নেমেছে বছরের প্রথম টেস্ট।নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ১৫টি টেস্ট ম্যাচ খেলে যে ১২টিতে হেরেছে বাংলাদেশ, তাতে ইনিংস পরাজয় সাতটি। বাকি যে তিন টেস্ট ড্র হয়েছে সেগুলো খেলা হয়েছে বাংলাদেশে। নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশ দল সবচেয়ে ভালো টেস্ট খেলেছে ২০১৭ সালে মুশফিকুর রহিমের নেতৃত্বে। বেসিন রিজার্ভে প্রথম ম্যাচ ড্রর কাছে গিয়েও হেরেছে কোচ চান্দিকা হাথুরুসিংহের ভুল সিদ্ধান্তে। সাকিব-মুশফিকের রেকর্ড জুটিতে প্রথম ইনিংসে ৮ উইকেটে ৫৯৫ রানে ইনিংস ঘোষণা করে ম্যাচ তুলে দেয় স্বাগতিকদের হাতে। বডি লাইন বলে আঘাত পেয়ে মুশফিক খেলতে পারেননি দ্বিতীয় ইনিংসে। ইমরুল কায়েস বলের আঘাতে ছিলেন ভীত। সাকিবের ডাবল সেঞ্চুরির টেস্টে প্রতিকূল কিছু ঘটনার কারণে হেরে যেতে হয়। ক্রাইস্টচার্চে পরের টেস্টে ইনজুরি ছিটকে দেয় দলের একাধিক মূল খেলোয়াড়কে। যে ম্যাচ ৯ উইকেটে হেরে দেশে ফেরে দল।কিউইদের মাঠে দ্বিপাক্ষিক সিরিজে জয় বঞ্চিত লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের সামনে এবার দেওয়াল ভাঙার চ্যালেঞ্জ। যে লক্ষ্যে আজ শনিবার মাউন্ট মঙ্গানুইয়ের বে ওভালে খেলতে নেমেছে সফরকারী বাংলাদেশ দল।