বিএনপিকে বাতি জ্বালিয়েও খুঁজে পাওয়া যায় না : কাদেরকল্যাণপুরে বস্তিতে আগুন, দগ্ধ ২করোনায় ১০০ চিকিৎসকের মৃত্যুমাস্ক ছাড়া প্রবেশ করা যাবে না সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানেশক্তিশালী ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল তুরস্ক; নিহত ২০, আহত ৭ শতাধিক
No icon

খালি পেটে যেসব খাবার খেলে শরীর সুস্থ থাকবে

শরীর সুস্থ রাখতে খাবার খাওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ঠিকমতো খাবার না পেলে শরীরে নানাবিধ সমস্যা দেখা দেয়। আজকাল সবাই ব্যস্ত। সময় মতো খাবার খাওয়ার কথা অনেকের মনে থাকে না। আবার অনেকে খিদে পেলে যা খুশি তাই খেয়ে নেন। এতে গ্যাস, হজম না হওয়ার মতো নানাবিধ সমস্যা দেখা যায়। রাতের খাবার আর সকালের নাস্তার মধ্যে দীর্ঘ একটা সময়ের বিরতি থাকে। আর এই সময়ে ঠিকঠাক খাবার খাওয়া খুব জরুরি। কারণ খালি পেটে সঠিক খাবারই সারাদিনের হজম ক্রিয়া ঠিক রাখে। সকালে উঠে যেসব খাবার দিয়ে দিন শুরু করলে উপকার পাওয়া যাবে-

তাজা ফল : অনেকেরই ধারনা, খালি পেটে কখনই ফল খেতে নেই। এতে শরীরে অ্যাসিডিটি বাড়ে। এ কারণে তারা দুপুরে খাওয়ার পর ফল খাওয়ার ব্যাপারে জোর দেন। কিন্তু এই ভাবনা একেবারেই ভুল। ফলের মধ্যে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন, ফাইবার থাকায় এটি শরীরের জন্য বেশ উপকারী। সকালে খালি পেটে একটা আপেল কিংবা নাশপাতি, কলা, শসা, পেঁপে যাই খাওয়া হোক না কেন তা শরীরের ডিটক্সিফিকেশনে সাহায্য করে। সেই সঙ্গে শক্তি উৎপন্ন করে। যার ফলে ওজনও কমে আর সারাদিন কাজের পরও ক্লান্তি আসে না।

ভেজানো কাজু বাদাম: কাজুবাদামে প্রচুর পরিমানে ম্যাগনেসিয়াম, ভিটামিন ই, প্রোটিন, ফাইবার, ওমেগা-থ্রি, ওমেগা-ছিক্স ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে। এ ফলটি ঠিকভাবে না খাওয়া হলে এর পুষ্টিগুণ থেকে বঞ্চিত হবেন। সবসময় কাজু বাদাম আগের রাতে ভিজিয়ে তবেই খাবেন। আর সকালে খালি পেটে ভেজানো কাজু বাদাম খেলে অনেক উপকার পাওয়া যায়।
ডিম : ডিমে পর্যাপ্ত পরিমাণে পুষ্টি থাকে। এটা সবভাবেই খাওয়া যায়। খালি পেটে একটা ডিম সিদ্ধ খেলে তা শরীরের জন্য উপকারী হবে। গবেষণা বলছে, সকালে উঠে খালি পেটে একটা ডিম সিদ্ধ খেলে সারাদিনের মোট খাবারের থেকে একটা ভালো পরিমাণ ক্যালরি পায় শরীর। ফলে সারাদিন তেমন ক্যালরির চাহিদা থাকে না। এতে ফ্যাটও ঝরে তাড়াতাড়ি।

গরম পানি ও মধু: সকালে উঠেই খালি পেটে অনেকেই লেবু আর মধুর পানি খান। কিন্তু শুধু যদি মধু দিয়ে খাওয়া হয় এটারও উপকারিতা আছে। মধুর মধ্যে শরীরের প্রয়োজনীয় খনিজ, ভিটামিন, উৎসেচক থাকে, যা শরীরকে ভেতর থেকে পরিষ্কার রাখে। আর খালি পেটে খেলে বিপাকক্রিয়া বাড়ে, শরীর থেকে টক্সিন বের হয়। এছাড়া শারীরবৃত্তীয় সব প্রক্রিয়া ঠিক থাকে।
ওটমিল পরিজ : সকালের নাস্তায় অনেকে ওটস খান। কেউ দুধ দিয়ে কেউ আবার টক দই দিয়ে। কিন্তু যদি পরিজ বানিয়ে নিতে পারেন তাহলে তা শরীরের জন্য ভালো। গরম পানিতে ওটস আর পাকা কলা দিয়েই বানাতে পারেন পরিজ। এর ফলে শরীরে হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিডের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকবে। সেই সঙ্গে কোলেস্টেরলও কমবে। পরিজ বানাতে আগে শুকনো কড়াইতে ওটস নেড়ে নিন। এবার ওর মধ্যে দুকাপ পানি দিন। এবার কিছুটা ঘন হলে হাফ কাপ দুধ দিন। এবার দু চামচ চিনি বা মধু দিন। বেশ ঘন হয়ে এলে নামিয়ে ফেলুন। ঠান্ডা হলে উপরে কাজু বাদাম ছড়িয়ে খান। ইচ্ছে হলে কলা, আপেল দিতে পারেন।


পেঁপে ও তরমুজ : এই দুই ফলের মধ্যে ফ্যাট নেই, কিন্তু পুষ্টিতে ভরপুর। ফল দুটি ওজনও কমায় খুব তাড়াতাড়ি। আর তাই সকালে উঠে একবাটি পেঁপে কিংবা তরমুজ খেলে শরীর সারাদিন সতেজতা বজায় থাকবে। এমনকী ফলগুলো প্রয়োজনীয় চিনির চাহিদাও পূরণ করবে। এতে সারাদিন মিষ্টি কম খাওয়া হবে এবং মিষ্টি খাওয়ার প্রবল ইচ্ছেটাও কমে যাবে।